আবারো বাড়ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি

বাড়ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি। করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধ ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আরেক দফা বাড়ানো হচ্ছে। আগামী ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত এ ছুটির পর এই ছুটির শেষ দিনে আবারো ছুটি সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর নির্দেশনা দেয়া হবে বলে জানা গেছে।। শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় আলোচনা করে ছুটি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়।

 

২৯ জুলাই সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত ছুটি বাড়ানো হয়। এই ছুটির শেষ দিনে আবারো ছুটি সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বাড়ানোর নির্দেশনা দেয়া হবে বলে জানা গেছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখবার আভাস দিয়েছেন।

 

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা শেষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে উদ্ভুত পরিবেশ অনুকূলে এলেই সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা চিন্তা করবে। পরীক্ষা নেয়ার মত অনুকুল পরিবেশ তৈরি হলে ১৫ দিন সময় দিয়ে স্থগিত এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হবে।

তিনি বলেন, অনুকূল পরিবেশ তৈরি হলে তার ১৫ দিনের মধ্যে পরীক্ষা নেওয়া হবে, যাতে পরীক্ষার্থীরাও জেনে প্রস্তুতি নিতে পারে। অনুকূল পরিবেশ হলেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার কথা চিন্তা করবে সরকার জানান শিক্ষামন্ত্রী।

 

ডা. দীপু মনি বলেন, ‘আপনারা জানেন দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। এই পরিস্থিতি আপনারা সবাই অবহিত। প্রায় ১৪ লাখ এইচএসসি পরীক্ষার্থী। পরীক্ষা নেওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুত ছিলাম, এখনো আছি। ১৪ লাখ পরীক্ষার্থীর সঙ্গে আরও কয়েক লাখ লোকবল জড়িত। এত সংখ্যক মানুষকে আমরা ঝুঁকির মধ্যে ফেলতে পারি না।

জানা গেছে, সেপ্টেম্বরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার প্রস্তুতি হিসেবে সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করার কাজ শুরু করা হয়েছে। শিক্ষার্থীর বয়স ও শ্রেণি অনুযায়ী জ্ঞান অর্জনের বিষয় সামনে রেখে সিলেবাস সংশোধন করা হবে বলে বলেও জানা গেছে। প্রথমে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেয়ার পক্ষে অনেকেই।

 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. আকরাম-আল-হোসেন বলেন, এ মুহূর্তে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা বা পরীক্ষা নেয়ার মতো পরিস্থিতি নেই। তাই শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। আগামীকাল দুই মন্ত্রণালয় বসে সিদ্ধান্ত নেবো। করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

#Bangladesh.com