করোনার থেকেও ভয়ানক ভাইরাস আসছে সামনে,ভয়াবহ ক্ষতির আশঙ্কায় বিশ্ববাসী!!!

চীনের ভাইরোলজিস্ট, শিন ঝেংগলি‌। যিনি পৃথিবী খ্যাত ‘‌ব্যাট ওম্যান’‌ নামে। কারণ, তিনিই বাদুড়ের শরীরের করোনাভাইরাস নিয়ে গবেষণা করে তুলে এনেছিলেন একের পর এক অজানা তথ্য। আজ এই সংকটের মুহূর্তে আবার তিনিই বলছেন, করোনা সংক্রমণ প্রাণঘাতী ভাইরাস আক্রমণের ক্ষুদ্রতম এক অংশ মাত্র। এরপর বারবার ভাইরাসের আক্রমণে সংকটের মুখে পড়তে পারে মানব সভ্যতা।

ইউহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির সহ–অধিকর্তা শিন পরিস্থিতি বিচার করে বলছেন, যে কোনও ভাইরাস নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে সরকার ও প্রশাসনিক স্তরে স্বচ্ছ হওয়া জরুরি। না হলে শেষ পর্যন্ত মানব কল্যাণে ভাইরাস নিরাময়ের কাজটি করা অসম্ভব হয়ে পড়বে।

 

তিনি জানিয়েছেন, মানব সভ্যতাকে যদি পরের ধাপে ভাইরাসের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে হয়, তাহলে ছোঁয়াচে রোগ নিয়ে আরও বৃহত্তর গবেষণার প্রয়োজন। প্রাকৃতিক পরিবেশে বন্যপ্রাণীর শরীরে কী ভাইরাস রয়েছে, আর তা থেকে কী ক্ষতি হতে পারে, তা আমাদের আগে থেকে বুঝতে হলে আরও গবেষণা করতে হবে। গবেষণা করলেই মানুষকে বিপদের কথা আগে থেকে জানান দেওয়া যাবে। না হলে অজান্তেই করোনা ভাইরাসের মতো একাধিক মারণ ভাইরাস আক্রমণ করে বসবে মানব শরীরকে। গবেষণা না করলে দ্রুত ফের আক্রান্ত হতে পারে মানব সভ্যতা। নতুন কোনও ভাইরাসের দ্বারা।

 

তার মানে, যে দেশে রোগের উৎপত্তি, যারা চিহ্নিত করেছেন এই ভাইরাসকে, তারাই বলছেন, ভাইরাসে প্রকোপ হয়ত এখানেই শেষ নয়। বাদুড় বা অন্য কোনও প্রাণী থেকে যদি এটি এসে থাকে, তাহলে কীভাবে এল, তাও স্পষ্ট নয়। বন্যপ্রাণ থেকে ভাইরাস সংক্রমণের এই ধারা যদি মানুষ ধরতে না পারে, তাহলে আরও বিপদ অপেক্ষা করছে ভবিষ্যতে। এমনটাই বলতে চাইছেন চীনের এই গবেষক। সূত্র : নিউজ এইটটিন।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

#Bangladesh.com